Posts Subscribe to This BlogComments

Follow Us

Monday, September 13, 2010

রসুন

মশলাপ্রিয় বাঙালির ভোজন রসিকতার খ্যাতি অনেক পুরোনো। খাবারে মশলা ব্যবহারের কারণে তার স্বাদের খ্যাতিও জাগতজোড়া। আমাদের দেশের খাবারে যেসব মশলার উপকরণ ব্যবহার করা হয়, রসুন তার মধ্যে অন্যতম। রান্নার উপকরণের পাশাপাশি স্বাস্থ্য ভালো রাখতেও রসুনের জুড়ি নেই।

রসুনে আছে ময়শ্চার, প্রোটিন, ফ্যাট, মিনারেল, ফাইবার ও কার্বোহাইড্রেট। ভিটামিন ও মিনারেলের মধ্যে আছে ক্যালসিয়াম, ফসফরাস, আয়রন, থিয়ামিন, রিবোফ্লাভিন, নিয়াসিন, এবং ভিটামিন সি। আয়োডিন, সালফার এবং ফ্লোরিনও আছে অল্প পরিমাণে। রসুন খেলে ক্ষুধামন্দা দূর হয়। অ্যাজমা, কানে কম শোনা, ব্রংকাইট কনজেশনে রসুন উপকারি। ঠান্ডা, সর্দি, কফ, সারাতে সাহায্য করে। ফুসফুস, ব্রংকিয়াল টিউব, সাইনাসের গহবরে মিউকাস জমতে দেয় না। টিবি, নিউমোনিয়া, হুপিং কাশির মতো রোগে রসুন বেশ উপকারি। এটা খুব ভালো এন্টিসেপটিক। ঘা, আলসার সারাতে সাহায্য করে। হজমের গোলমাল যেমন আমাশয়, কৃমির মতো সমস্যায় রসুন উপকারে আসে। রসুন রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে রাখে। হার্টঅ্যাটাক প্রতিরোধ করে। হƒদরোগ কমায়, রক্ত সঞ্চালন ভালো রাখে। শরীরে টক্সিনের পরিমাণ কমাতে সাহায্য করে। রসুন শরীরে কোলেস্টরেলের পরিমাণ কমাতে সাহায্য করে। রসুন ক্যান্সার প্রতিরোধেও সাহায্য করে। কোনো কিছু ভাজার জন্য বা কারিপেস্টের জন্যও রসুন ব্যবহƒত হয়। তবে কাঁচা রসুন বেশি খাওয়া উচিত নয়। বেশি খেলে অনেক সময় মাইগ্রেনের সমস্যা দেখা যায়। রসুন থেকে অনেকের অ্যালার্জি হতে পারে। চামড়ায় ইরিটেন্স বা র‌্যাশও হতে পারে।

Related Post



0 comments:

Post a Comment

Bangla Help

Sponsor