Posts Subscribe to This BlogComments

Follow Us

Friday, November 12, 2010

ক্যাকটাস

আমাদের দেশে স্থূল আকৃতির কাণ্ডবিশিষ্ট, পাতা ও শাখাহীন কাঁটাযুক্ত যে উদ্ভিদ জন্মায় তাদের ক্যাকটাস বলা হয়। এই উদ্ভিদ প্রধানত মরুভূমি এবং মরুভূমিসদৃশ শুষ্ক অঞ্চলের গাছ। উত্তর আমেরিকায়, দক্ষিণ আমেরিকায়, পূর্ব ও পশ্চিম আফ্রিকা, ম্যাডাগাস্কার এবং শ্রীলঙ্কাতেও এই গাছ দেখা যায়। জনহীন শুষ্ক অঞ্চলে অন্য ধরনের গাছ জন্মাতে পারে না, কিন্তু ক্যাকটাস সেখানে স্বচ্ছন্দে বেড়ে ওঠে এবং বেঁচে থাকতে পারে। এই গাছ তার স্থূল কাণ্ডের মধ্যে জল সঞ্চিত রাখে, তাই জলের অপচয় রোধ করার জন্য এদের পাতা কাঁটায় পরিণত হয়। তৃষ্ণার্ত প্রাণীরা কাঁটার ভয়ে এদের সঞ্চিত জলভাঙার কাণ্ডে মুখ দেয় না। স্থূল সবুজ কাণ্ডের সাহায্যেই এরা পাতার স্বাভাবিক কাজ বজায় রাখতে পারে। ফণিমনসা বা তেশিরা সিজ গাছ একজাতীয় ক্যাকটাস। এদের পাতা যথেষ্ট পুরু ও পেলব। এ ছাড়াও সুন্দর কোনাকৃতি এবং চ্যাপ্টা বিভিন্ন আকারের ক্যাকটাস দেখা যায়। যেসব ক্যাকটাস গাছে ফুল হয় তাদের সব ফুল সুগন্ধযুক্ত হয়। ফুল কেবলমাত্র রাতেই ফোটে। কিছু ক্যাকটাসে ফলও হয়ে থাকে। সব ক্যাকটাসের কাণ্ডের বাইরের দিক কঠিন এবং তার ওপরের অংশে মোমের মতো আবরণ থাকে। বিশেষ বিশেষ জাতের ক্যাকটাস গৃহসজ্জার অনবদ্য উপকরণ। বালি ও কাঁকরযুক্ত দো-আঁশ মাটিতে বা টবে সহজেই এই গাছের চাষ করা যায়। কাণ্ড থেকেই নতুন গাছ জন্মায়। এরা দীর্ঘজীবী হয়। প্রায় ২৫০ বছর পর্যন্ত বেঁচে থাকে। এদের শাখায় পেঁচা ও কাঠঠোকরা কোটর তৈরি করে বাস করে। অ্যারিজোনা অঞ্চলে বিভিন্ন ধরনের ক্যাকটাস দেখা যায়। আমাদের দেশে ঘৃতকাঞ্চন নামে একজাতীয় ক্যাকটাস ওষুধ তৈরির কাজে ব্যবহৃত হয়।



মো. আশিফ হোসেন

Related Post



0 comments:

Post a Comment

Bangla Help

Sponsor